বনানী কবরস্থানে ফজলে হাসান আবেদের দাফন রোববার

0
297

কেএম সবুজ (বিশেষ)প্রতিনিধিঃ ব্র্যাকের প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হাসান আবেদের মরদেহ আগামীকাল রোববার রাজধানীর বনানী করবস্থানে দাফন করা হবে। তার আগে ওইদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত তার মরদেহ ঢাকার আর্মি স্টেডিয়ামে সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য রাখা হবে। এরপর দুপুর সাড়ে ১২টায় আর্মি স্টেডিয়ামেই নামাজে জানাজা সম্পন্ন হবে।

গতকাল শুক্রবার রাত ৮টা ২৮ মিনিটে
রাজধানীর বসুন্ধরার অ্যাপোলো হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন স্যার ফজলে
হাসান আবেদ। ব্র্যাকের পক্ষ থেকে এসব তথ্য নিশ্চিত করা হয়।

এক শোক
বার্তায় ব্র্যাকের পক্ষ থেকে দুই নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ এবং ডা.
মুহাম্মাদ মুসা বলেন, আমরা গভীর দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, ব্র্যাকের
প্রতিষ্ঠাতা স্যার ফজলে হাসান আবেদ, (আমাদের প্রিয় আবেদ ভাই) আর আমাদের
মাঝে নেই। এ মুহূর্তে, কোনো সমবেদনা বা সান্তনার ভাষা তাকে হারানোর কষ্ট
কমাতে পারবে না। যেকোনো কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে শান্ত থাকা ও এগিয়ে যাওয়ার
শিক্ষাই তিনি সবসময় আমাদের দিয়েছেন। জীবনভর যে সাহস আর ধৈর্যের প্রতিচ্ছবি
আমরা তার মাঝে দেখেছি, সেই শক্তি নিয়েই আমরা তাঁর স্মৃতির প্রতি যথাযথ
সম্মান জানাব।

প্রসঙ্গত, চলতি বছর স্যার ফজলে আবেদ ব্র্যাকের
চেয়ারম্যানের পদ থেকে অব্যাহতি নেন। তাকে প্রতিষ্ঠানটির ইমেরিটাস চেয়ার
নির্বাচিত করা হয়।

১৯৭২ সালে ব্র্যাক প্রতিষ্ঠা করার পর সংস্থাটি বিশ্বের সবচেয়ে
বড় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থায় পরিণত হয়েছে। দারিদ্র্য বিমোচন ও উন্নয়নে
ভূমিকা রাখায় স্যার আবেদ বাংলাদেশ ও বিশ্বের অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ
অ্যাওয়ার্ড ও সম্মাননা পেয়েছেন।

১৯৮০ সালে র্যামন ম্যাগসাইসাই
পুরস্কার, ২০১১ সালে ওয়াইজ প্রাইজ অব এডুকেশন, ২০১৪ সালে লিও টলস্টয়
ইন্টারন্যাশনাল গোল্ড মেডেল, স্প্যানিশ অর্ডার অফ সিভিল ম্যারিট, ২০১৫ সালে
বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি পুরস্কার অর্জন করেন। সর্বশেষ চলতি বছর তিনি
সিঙ্গাপুর ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকে দক্ষিণ এশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি
হিসেবে সাউথ এশিয়ান ডায়াসপোরা অ্যাওয়ার্ড, শিক্ষায় ভূমিকা রাখায় ইয়াডান
পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here