তিন জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

0
305

ডেস্ক রিপোর্টঃ গতকাল তিন জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ১ জন চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় ট্রাক্টর উল্টে চালক, সিরাজগঞ্জে বাস চাপায় যুবক এবং যশোরে বাস চাপায় ব্যবসায়ী নিহত হন। তিন জেলা প্রতিনিধির পাঠানো রিপোর্টে বিস্তারিত-

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি জানান, দামুড়হুদা উপজেলার
হিজলগাড়ি-দর্শনা সড়কের দোয়েল ইটভাটার অদূরে মাটি বোঝাই ট্রাক্টর উল্টে
চালক রহিদুল ইসলাম ওরফে রহেদ (২৬) নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার
দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রহিদুল ইসলাম রহেদ উপজেলার দর্শনা পৌর এলাকার
শ্যামপুর গ্রামের শহীদ আলীর ছেলে।  দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ
(ওসি) সুকুমার বিশ্বাস জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে সদর উপজেলার
দোস্ত গ্রামের মাঠ থেকে মাটি বোঝাই ট্রাক্টর নিয়ে দর্শনা হঠাৎপাড়া মসজিদে
যাচ্ছিলো। পথে দোয়েল ভাটার অদূরে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের খাদে
ট্রাক্টরটি উল্টে গেলে চালক রহিদুল ইসলাম গুরুতর আহত হন। তাকে উদ্ধার করে
চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

সিরাজগঞ্জ
প্রতিনিধি জানান, সিরাজগঞ্জ সদরে বাসের নিচে চাপায় আবদুল বাছেদ (২২) নামে
যুবক নিহত হয়েছেন। তিনি শহরের তেলকুপি পূর্বপাড়ার শাহজাহান আলীর ছেলে।

গতকাল বিকাল পৌনে ৩ টার দিকে সিরাজগঞ্জ-রায়গঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের
তেলকুপি বটতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সদর থানার এসআই আনিছুর রহমান জানান, একটি
রিজার্ভ মিনিবাস ঘটনাস্থল অতিক্রম করার সময় বাছেদ বাসটিতে উঠার চেষ্টা
করে। কিন্তু উঠতে না পেরে পা ফসকে পড়ে গেলে বাসের চাকা তার মাথার ওপর দিয়ে
উঠে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই বাছেদ মারা যান। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে বাসটি
আটক করা হয়েছে। চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে।

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর
থেকে জানান, যশোরে বাসের চাপায় পিষ্ট হয়ে মোয়াজ্জেম হোসেন (৫৫) নামের একজন
ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। এ সময় তার সঙ্গে থাকা মেয়ে ফাল্গুনী আক্তার গুরুতর
আহত হয়েছে। নিহত মোয়াজ্জেম হোসেন যশোর সদর উপজেলার বিরামপুরের মোশারফ
হোসেনের ছেলে।

গতকাল বিকালে যশোর-ঝিনাইদহ সড়কের সাতমাইল গোহাটার সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতের
স্বজনরা জানান, গতকাল দুপুরে কালীগঞ্জ থেকে মোটরসাইকেলে তার মেয়েকে নিয়ে
যশোরে ফিরছিলেন। যশোর-ঝিনাইদহ সড়কের সাতমাইলের গোহাটার সামনে এলে খুলনা
থেকে ছেড়ে আসা গড়াই পরিবহনের একটি বাস তাদের চাপা দেয়। ঘটনাস্থলে
মোয়াজ্জেমের মৃত্যু হয়। মেয়ের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় স্থানীয়রা তাকে
উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করে।

হাসপাতালের জরুরি
বিভাগের ডাক্তার কাজল মল্লিক জানান, ফাল্গুনীর অবস্থা আশঙ্কাজনক। যশোর
কোতোয়ালি থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানান, লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা
হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here